লেখা

উলিল-আমরের প্রতি
উলিল-আমরের প্রতি
১৩ অক্টোবর ২০১৭

 

বক্ষে দারুন পাথর রেখেছি দীপ জ্বালাতে ঘষে যার

পেশীতে চিকন নাফ দরিয়া ফুঁসে ওঠে আজ রোষে যার

 

যার আসার ফাঁকা পথে হেটে আসে কেবল ডাকপিওন

ঘোর শাওনে কভু হয়ে যায় দেখা বাদল দিবসে যার

 

জানে বুলবুলি কত ধানে মন ফুলের হাসির জন্যে

দুরন্ত বাতাসে উড়ায় পতাকা শিশু উল্লাসে যার

 

হায়, আজ স্বপ্ন ভঙ্গ; ভ্রমর নিজেই গুড়ায় বীথি

ঝরা পাতা-ফুল ভাসে তরঙ্গে তৈরী দরিয়া পাশে যার

 

পীঞ্জরে তড়পায় কেউ লক্ষ্যভেদী স্মৃতিতে শারার

পোড়ে যৌবন হয় সীসাঢালা লায়লাকে ভালোবেসে যার

 

ঘরে এসেছে মেহমান; হ্যাঁ, সেই ঘর হলে আমার ঘর

নিজেরই আঙ্গীনা চড়ক; ভরসা নিরুদ্দেশে যার

 

চীন ও আরব আমাদের, এ হিন্দুস্তান আমাদের

আজো হয়নি বাঁধা সুখনীড় সবুজ ঘাসের দেশে যার

 

হামাগুড়ি দিয়ে চলা সবে পথের প্রান্তে যেথায় ঘর

শুরুতে কালো পীচঢালা পথ আর উদ্যান শেষে যার 

 

পথে গর্তওয়ালা, এ কথা, ফুলের অধিনায়ক জানে

অর্ক জাগে শেষ রক্ত-ফোঁটায় হৃদ-নির্যাসে যার

 

মনসুর, পৌঁছাও বেষ্টনী ভেঙে উলিল-আমরকে

আজো পল গোনে ধূলোয় পাপড়ি জাগতে নির্দেশে যার

 

নিঊইয়র্ক

১৯ সেপ্টেম্বর , ২০১৭